পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার ২০২৪’ -এর জন্য বই আহবান

গতবারের ন্যায় এবারও ‘পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার’-এর জন্য তরুণ লেখকদের নিকট থেকে বই আহ্বান করা হয়েছে। প্রতি দুইবছর অন্তর বাংলাসাহিত্যে সামগ্রিক অবদানের জন্য একজন চল্লিশোর্ধ লেখককে এবং কবিতা, কথাসাহিত্য, প্রবন্ধ / গবেষণা ও শিশুকিশোর সাহিত্য এই চারটি বিভাগে বিশেষ অবদানের জন্য অনুর্ধ্ব চল্লিশ বছর বয়সের ৪জন তরুণ লেখককে বিগত দুই বছরে প্রকাশিত নতুন গ্রন্থ মূল্যায়ন পূর্বক এ পুরস্কার প্রদান করা হবে।
শুধু বাংলাদেশের নাগরিকগণ (বিদেশে বসবাসরত বাংলাদেশিরাও) পুরস্কারের যোগ্য বিবেচিত হবেন। প্রয়াত ব্যক্তিকে মরণোত্তর পুরস্কার প্রদান করা হবে না। তবে পুরস্কার প্রদান প্রক্রিয়া চলাকালে পুরস্কারের জন্য মনোনীত লেখক প্রয়াত হলে এই বিধি প্রযোজ্য নয়।
২০২২ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ২০২৪ সালের আগস্ট পর্যন্ত সময়ে প্রকাশিত অনুর্ধ্ব চল্লিশ বছর বয়সী তরুণ লেখকদের যেকোনো বিভাগের মৌলিক ১টি গ্রন্থের ২ (দুই) কপি ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৪ এর মধ্যে ‘প্রকাশক, পাপড়ি, ৪১১ রংমহল টাওয়ার (৪র্থতলা), বন্দর বাজার, সিলেট-৩১০০। মুঠোফোন-01712786775’ এই ঠিকানায় কুরিয়ার / ডাক / সরাসরি জমা দিতে হবে। খামের ওপর অবশ্যই ‘পাপড়ি-করামত আলী সাহিত্য পুরস্কার-২০২৪’ কথাটি লিখতে হবে। শুক্রবার ব্যতীত যে-কোনো দিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টার মধ্যে উপরোক্ত ঠিকানায় সরাসরি বই জমা দেওয়া যাবে। একজন লেখক একাধিক বিভাগের জন্য বই জমা দিতে পারবেন। বই জমাদানের সাথে লেখকদের বয়স প্রমাণের জন্য জাতীয় পরিচয়পত্র / পাসপোর্টের ফটোকপি জমা দিতে হবে। জমাকৃত বই মূল্যায়ন কমিটির মাধ্যমে মূল্যায়ন করে পুরস্কার হিসেবে নগদ অর্থ, ক্রেস্ট ও একটি সম্মাননা প্রদান করা হবে। পুরস্কারের জন্য জমাকৃত বইয়ের প্রথম সংস্করণই শুধু বিবেচিত হবে।
পুরস্কারের যে-কোনো পর্যায়ে বাছাইয়ের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তির বই পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হবে না। চূড়ান্ত বাছাইশেষে একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে পুরস্কার প্রদান করা হবে। পুরস্কার সংক্রান্ত যে কোনো বিষয়ে বিচারকমণ্ডলীর সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে। যেকোনো প্রয়োজনে 01711 480 379 নম্বরে সরাসরি যোগাযোগ করা যাবে। বিজ্ঞপ্তি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *