নূর-ই-ইলাহীর দুটি ছড়া

স্য়ংক্রিয় বিজ্ঞাপন

শীতের বুড়ি 

শীতের বুড়ি ঘোমটা পড়ে বাংলাদেশে আসে,
খেজুর গাছে রসের হাঁড়ি পৌষ-মাঘের মাসে।
হিমেল হাওয়ায় বর্গাচাষি চাদর মুড়ে গায়,
মেঠোপথে লাঙ্গল কাঁধে মাঠের পানে যায়।
সূর্যি মামা মুখটি লুকায় মেঘের দেশে গিয়ে,
চাঁদ মামাটাও দেয় না দেখা শীতের বুড়ির ভয়ে।
কুহেলিকার চাদর ফুঁড়ে সূর্য যখন বাড়ে,
রৌদ্র তখন যায় নেচে যায় আমার মাটির ঘরে।
সূর্য মুখীও হাসতে থাকে মনভোলানো হাসি,
সোনা মাখা শীতের সকাল দারুণ ভালোবাসি।
ভাঁপা পিঠার গন্ধ ভাসে সাড়া উঠোন জুড়ে,
হরেক রকম পিঠাপুলি সবার ঘরে ঘরে।

২. গাঁয়ের ছেলে

বাউরি বাতাস গাছের পাতায় বাজায় মোহন সূর,
সূর্য বিলায় আলো আমায় আঁধার করে দূর।
সবুজ গাঁয়ের ধুলায় মেশে আমার অবুঝ মন,
পাখির মতো ডানা গজায় তখন কিছুক্ষণ।
সেই ডানাতে ভর দিয়ে যেই উড়ে গেলাম বনে,
প্রজাপতির দোলদুলানি দেখি ফুলের সনে।
শীতল মাটির পাটির ওপর স্বপ্ন ধরে রাখি,
স্নিগ্ধ কোমল চাঁদের হাসি করে মাখামাখি।
চাঁদের মেয়ে ঘুম পাড়ালো দোলনা ঠেলে ঠেলে
মন পবনে হারিয়ে গেলাম আমি গাঁয়ের ছেলে।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।